izmir kizlar
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam inönü üniversitesi taban puanları

মসজিদুল হারাম ও নববী কি আসলেই খুলে দেয়া হয়েছে?

FB_IMG_1588850247834.jpg

মোহাম্মদ শাহজাহান।।

এক।
করোনা ভাইরাস থমকে দিয়েছে সারা বিশ্বকে। বাদ যায়নি ইবাদতগৃহ বা উপাসনালয়ও। কাবা শরীফ অর্থাৎ মসজিদুল হারাম আর মসজিদুল নববীও বন্ধ একই কারণে। আমাদের এখানেও মসজিদগুলোতে পাঁচ ওয়াক্তের নামাজসহ জুমা আর পবিত্র রমজানের তারাবি নামাজ সরকারী আদেশে বেশ কিছুদিন অত্যন্ত সীমিত পরিসরে চালু থাকার পর অতি সম্প্রতি শর্তাধীনে খুলে দেয়া হয়েছে।

দুই।।
ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কাছে মসজিদে স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজমান না থাকাটা বেদনার। তাই করোনা পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে আর কবে মুসল্লিরা দলবলে গিয়ে মসজিদে নিঃশর্ত নামাজ আদায় করতে পারবেন- এ নিয়ে জল্পনারও শেষ নেই যেনো। আর এতে মসজিদুল হারাম ও মসজিদুল নববী খুলে দেয়া, না দেয়াও একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করছেন অনেকে। কারণ, সারা বিশ্বে মসজিদগুলোতে নামাজ আদায় বন্ধ বা সীমিত করার পেছনে মসজিদুল হারাম ও নববী বন্ধের যুক্তি দেখানো হয়েছে। একই যুক্তিতে মসজিদুল হারাম ও নববী খুলে দেয়া হলে অন্যান্য মুসলিম দেশের মসজিদগুলোও ক্রমান্বয়ে খুলে দেয়া হবে-এমনটিই ভাবনা অনেকের।

তিন।।
সৌদি আরবের করোনা পরিস্থিতি এখনও বেশ নাজুক। এর ফলে মসজিদুল হারাম ও নববী এখনও বন্ধই আছে। মসজিদ দুটো খুলে দেয়ার ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি সৌদি সরকার। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে বাংলাদেশের গণমাধ্যম ও সোশাল মিডিয়া মসজিদ দুটো খুলে দেয়া হয়েছে-এমন ভুয়া খবরে সয়লাব। নিচে পত্রিকার নামের পাশে উল্লেখিত শিরোনামগুলোতে ক্লিক করে আমাদের গণমাধ্যমের এ সংক্রান্ত কয়েকটা খবর পড়ে নিন।
জনকন্ঠ এর শিরোনাম- মসজিদুল হারাম-নববী খুলে দিল সৌদি
ঢাকাটাইমস২৪ এর শিরোনাম- খুলে দেয়া হল মসজিদুল হারাম ও নববী
আগামীনিউজ এর শিরোনাম- খুলে দেয়া হল মসজিদুল হারাম ও নববী

চার।।
এই খবরগুলোতে একেকটি গণমাধ্যম একেকটি সূত্র উল্লেখ করেছেন। কেউ বলছেন সৌদি হজ্ব ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের কথা, কেউবা মসজিদুল হারাম এর কর্তৃপক্ষের কথা বলছেন। কেউ কেউ আবার সৌদি গেজেটসহ সৌদি আরবের পত্র-পত্রিকার বরাত দিয়েছেন। কিন্তু সৌদি সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট ভিজিট করে মসজিদ দুটো খুলে দেয়া হয়েছে মর্মে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। সৌদি গেজেট নামের পত্রিকার সাইটেও এ ধরণের কোন খবর নেই। অথচ, এটি সত্য হলে অনেক বড় খবর হিসেবে এটি অবশ্যই এ দুটো ওয়েবসাইটে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে প্রকাশিত হতো। বরং দেখা যাচ্ছে, মসজিদুল হারামের টুইটার একাউন্ট Haramaininfo এ রীতিমতো Clarification আকারে বলা হয়েছে, মসজিদুল হারাম খুলে দেয়া হয়েছে মর্মে প্রচারিত/প্রকাশিত খবরটি পুরোপুরিই মিথ্যা ও ভুয়া। নিচের লিঙ্কগুলোতে ক্লিক করে সৌদি সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, সৌদি গেজেট পত্রিকার সাইট ঘুরে আসুন এবং মসজিদুল হারামের উক্ত নোটিশটি পড়ে নিন।
মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট- হজ্ব ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়, সৌদি আরব
সৌদি গেজেট পত্রিকার ওয়েবসাইট- সৌদি গেজেট পত্রিকা
Haramainifo এর Clarification- এটি পুরোপুরি ভিত্তিহীন ও মিথ্যা

পাঁচ।।
বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি দিন দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। এখনও ঘর থেকে বাইরে বের হবার সময় আসেনি। কিন্তু একদিকে মানুষ সরকারের খবরদারি মেনে ঘরে থাকতে নারাজ, অন্যদিকে সরকারও গার্মেন্টস কারখানা খুলে দেয়া, আসন্ন ঈদ উপলক্ষে সীমিত পরিসরে দোকানপাট খুলে দেয়া ও মসজিদগুলো ‘শর্তাধীনে’ খুলে দেয়ার মত কিছু হঠকারী ও স্ববিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এতে মসজিদুল হারাম ও নববী খুলে দেয়া হয়েছে মর্মে প্রকাশিত ভুয়া খবরটি কোন ভুমিকা রেখেছে কিনা বলা মুশকিল।

ছয়।।
করোনা সংকটের এই সময়টাতে সাংবাদিকদের ও পাঠকদের খবরের সত্যাসত্য সম্পর্কে অনুসন্ধিৎসা এখন অন্য যে কোন সময়ের চেয়ে বেশি জরুরি।আরেকটি কথা না বললেই নয়, জীবনটা যেহেতু আপনার-আমার, ঘরে থেকে বাঁচার চেষ্টা করার দায়িত্বও আপনার-আমার।

লেখক-
মোহাম্মদ শাহজাহান
আইনজীবী,বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট। মুঠোফোন-০১৮২৭৬৫৬৮১৬

Top