izmir kizlar
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam inönü üniversitesi taban puanları

কুতুবদিয়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত-১,আটক-১২

Screenshot_2020-05-29-09-40-37-1.png

বিশেষ প্রতিবেদক ।।

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক ব্যক্তি খুন হয়েছে। নিহত জাহাঙ্গীর আলম (৩৩)ওই গ্রামের দরদ উল্লাহর ছেলে বলে জানা গেছে। এসময় আহত হয়েছে কমপক্ষে ৮ জন ব্যক্তি। এ ঘটনায় নারীসহ সন্দেহজনক ১২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহষ্পতিবার (২৮মে) বিকাল চার টার দিকে উপজেলার লেমশীখালী ইউনিয়নের পেয়ারাকাটা গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, পিয়ারা কাটা এলাকার রেজাউল করিমের পুত্র সায়েম (১৮),ছাবের আহমদের পুত্র জুয়েল(২৫), নুর হুছাইনের পুত্র জাফর আলম(১৮) ও আবু বকরের পুত্র এরশাদুল করিম রিপন (২৮)সহ আরও ৭/৮ জন যু্বক লেমশীখালী আবুল্লার দোকান হতে ফুটবল খেলার কথা বলে একটি টেম্পু ভাড়া করে দ্বীপের পশ্চিমে সৈকতের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। কিছু দূর আসার পর মনি মাঝির দোকানের সামনে সবাই নেমে যায়। পূর্বের তুচছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দোকানদারের সাথে কথা কাটাকাটি হয় তাদের। খবর পেয়ে দোকানদারের ভাতিজা জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে উভয় পক্ষের আরো অনেকেই জড়ো হতে থাকে সেখানে। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের কথা কাটাকাটি সংঘর্ষে রূপ নিলে ঘটনাস্থলে নিহত হন জাহাঙ্গীর আলম।

ইতোপুর্বে একই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই বার মারামারির ঘটনা হয়েছে। স্থানিয় চেয়ারম্যান ও মেম্বার ঘটনাটির ব্যাপারে দায়সারা মনোভাব দেখানোয় খুনের ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানান সচেতনমহল।

কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, সংঘর্ষের ঘটনায় আহত হয়ে ৮জন হানপাতালে ভর্তি হয়। আহতরা সকলেই ওই ইউনিয়নের পেয়ারাকাটা এলাকার বাসিন্দা।

কুতুবদিয়া থানার ওসি মোহাম্মদ দিদারুল ফেরদাউস জানান,খুনের সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে পুলিশের টিম নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নারীসহ ১২ জনকে আটক করা হয়েছে। পুলিশের কয়েকটি টিম ঘটনাস্থলে কাজ করছে। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে। এখনো কেউ এজাহার জমা দেয়নি। এজাহার জমা দিলে বাকি আইনগত

Top