izmir kizlar
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam inönü üniversitesi taban puanları

কুতুবদিয়ায় সাধারণ রোগীদের ভরসাস্থল ডা. মাহমুদুল হাসান

IMG_20200627_220301.jpg

বিশেষ প্রতিবেদক।।

কুতুবদিয়ায় সাধারণ রোগীদের আস্থা অর্জন করেছে ডা. মাহমুদুল হাসান। তিনি কুতুবদিয়া হাসপাতালের অর্থোপেডিক সার্জারী বিশেষজ্ঞ ডাক্তার। হাসপাতালে যোগদানের পর থেকে তিনি নিরবিচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে চলেছেন। এই জন্য দ্বীপবাসীর প্রশংসায় ভাসছেন তিনি।

মনোহরখালী ফতেয়ারপাড়া এলাকার মুজিবুল হকের ছেলে মোহাম্মদ হোছাইন (৩০) জানান, ৮ জুন দুপুরে বাসায় পালিত ষাড়টিকে খাবার দিতে যাই। হঠাৎ গরুর শিং এর আঘাতে হাঁটুতে মারাত্মক আঘাত পাই। আত্মীয়-স্বজন আমাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। ক্ষত স্থানে ৩০/৩৫ টি সেলাই হয়। ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিয়ে আজ সম্পুর্ণ সুস্থ হয়ে উঠেছি। এই ডাক্তার কুতুবদিয়ার জন্য আশির্বাদ স্বরুপ। উনার কাছে চিকিৎসা না পেলে হয়ত আমি বেঁচে উঠতে পারতাম না। এই রকম ডাক্তার কুতুবদিয়া হাসপাতালে আরো দরকার বলে মনে করি।

ভুক্তভোগীদের অনেকে জানান,তিনি হাসপাতালে যোগদানের পর থেকে অনেক জটিল রোগীর অপারেশন করেছেন। সবাই সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে। এসব রোগীদের আগে রেফার করে দেওয়া হতো। কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদানের পর থেকে বিনামূল্যে অপারেশনও করছেন তিনি। হতদরিদ্র রোগীদের এখন থেকে ভোগান্তির দিন শেষ বলে জানান তারা। এই মহামারিতে হতদরিদ্র মানুষের পক্ষে দ্বীপের বাইরে গিয়ে যখন অপারেশন করা দূরহ হয়ে পড়েছে,ঠিক তখনই আশার সঞ্চার হয়েছে দ্বীপবাসীর বুকে।

অর্থোপেডিক সার্জন ডাঃ মাহমুদুল হাসান বলেন, কুতুবদিয়া বাংলাদেশের একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। এখান
থেকে বাইরে গিয়ে অপারেশন করা ব্যয়বহুল ব্যাপার
এবং ভোগান্তিরও যেন শেষ থাকেনা রোগীদের। তাদের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে আমরা হাসপাতালে বিনামূল্যে অপারেশন কার্যক্রম হাতে নিই। ইতোমধ্যে বেশ কিছু সংখ্যক রোগীর বিনামূল্যে অপারেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে। তাদের হাসপাতাল থেকে প্রয়োজনী ওষুধ সরবরাহ দেওয়া হয়েছে। আমি যতদিন আছি এই হাসপাতালে বিনামূল্যে অপারেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করে যাবো। সকলের সহযোগিতা পেলে আরো ভালোভাবে চিকিৎসা সেবা দিতো পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এ ব্যাপারে কুতুবদিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, করোনা ভাইরাস মহামারিতে দ্বীপের মানুষের ভোগান্তি দূর করতে আমরা হাসপাতালে বিনামূল্যে অপারেশন কার্যক্রম হাতে নিয়েছি। মাস আগে থেকে অপারেশন থিয়েটার পুরোদমে খোলা হয়েছে। খোলার পর বেশ সংখ্যক রোগীর সফল অপারেশন হয়েছে। তাদের হাসপাতাল থেকে প্রয়োজনীয় ওষুধও সরবরাহ দেওয়া হয়েছে। আজকের অপারেশন থিয়েটারের সফলতা একধাপ এগিয়ে নেওয়ার দায়িত্বে ডা.মাহমুদুল হাসানের ভুমিকা সত্যিই প্রশংসার দাবী রাখে।

Top