izmir kizlar
porno izle sex hikaye
çorum sürücü kursu malatya reklam inönü üniversitesi taban puanları

ছাত্রলীগ নেতা জিসানের মানবিক উদ্যোগঃ মুজিববর্ষ উপলক্ষে অসহায় পথচারী ও অনাথদের মাঝে মাসব্যাপি খাবার বিতরণ

IMG_20200919_210739.jpg

ইসমাম রফিক।।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে অসহায় পথচারী ও অনাথদের মাঝে মাসব্যাপি খাবার বিতরণের উদ্যোগে নিয়েছে কক্সবাজার শহর ছাত্রলীগ নেতা খাইরুল ইসলাম জিসান। এরই ধারাবাহিকতায় কক্সবাজার পৌর শহরের বিভিন্ন সড়কের পাশে রাত্রি যাপন করা ঠিকানাবিহীন পথচারী ও অনাথদের মাঝে খাবার বিতরণের মাধ্যমে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেছে।

খায়রুল ইসলাম জিসান কক্সবাজার সদর মডেল থানার পিছনের রোডস্থ আবাসিক হোটেল তাজশেবা’র সত্ত্বাধিকারী ও কক্সবাজার শহর ছাত্রলীগ নেতা।

শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) জুমার নামাজের পর এ খাবার বিতরণ শুরু করা হয় ও প্রতি রাতে মাসব্যাপী এ ধারা অব্যহত থাকবে।

প্রথম দিনে এই মানবিক কাজে তার সাথে সহযোগিতায় ছিলেন-হট চিকেন এর চেয়ারম্যান ভবতোষ দাশ, ছাত্রলীগ নেতা খালেক মাসুদ,ইসমাম রফিক, ওবায়দুল, রিয়াদ, ইফতেখার মাহমুদ শুভ, আদিল, শাহাবুদ্দিন, আতাউর রহমান ওয়াসিম,শাহেদুল ইসলাম ও তামিম।

সূত্রে জানা যায়, কখনো দিনে, কখনো বা রাতে তার সহকর্মীদের নিয়ে এ খাবার বিতরণের আয়োজন চলবে। কক্সবাজার শহরে অনেক ধনী ও ব্যবসায়ী লোক রয়েছে, রয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বড় বড় পদবীধারী নেতাও। কিন্তু অসহায় ও ঠিকানাবিহীন এসব মানুষের পাশে কয়জন বা দাঁড়াতে পারে। অসহায় ও অনাথদের একবেলা খাবার দিলে তারা খুশি হয়। তার এই মানবিক উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন কক্সবাজার জেলা ও শহর ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন শ্রেনি পেশার মানুষ।

এর আগেও করোনাকালীন তার আবাসিক হোটেলের ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে এক মাসের প্রায় লক্ষাধিক ভাড়ার টাকা মওকুফ করে দেন হোটেল মালিক ছাত্রলীগ নেতা খায়রুল ইসলাম জিসান।

কক্সবাজার জেলার এক ছাত্রলীগ নেতা বলেন, ছাত্রলীগ নেতা জিসান অসহায় ও অনাথ শিশুদের জন্য মাসব্যাপি দিনে ও রাতে একবেলা খাবার দেওয়ার যে ঘোষনা দিয়ে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছে। তা অন্য ছাত্রলীগ নেতারা ও অনুসরণ করতে পারে। তার এমন মানবিকতা শুনে আমি খুশি হলাম। এমন ইতিহাস আমাদের জন্য গর্বেরও। ছাত্রলীগ নেতা জিসানের এমন কাজ ছাত্রলীগকে গৌরবান্বিত ও সম্মানিত করেছে।

ছাত্রলীগ নেতা খাইরুল ইসলাম জিসান বলেন, করোনার এই সংকটে আমি মনে করি এটি প্রতিটি নাগরিকের কর্তব্য। মানবতার ছাত্রলীগ, দেশরত্নের ছাত্রলীগ, সারা বাংলার দুঃসময়ের ছাত্রলীগ, জয়-লেখক ভাইয়ের নেতৃত্বে সময়ের সেরা ছাত্রলীগের একজন কর্মী হিসেবে আমি অসহায় ও অনাথদের জন্য দিনে ও রাতের এক বেলা খাবার মুখে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করছি। মানবিক বিবেচনায় আমার এ ক্ষুদ্র প্রয়াস। অসহায় ও অনাথদের পাশে দাঁড়াতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি।

Top